Saturday, September 10, 2016

Life in today's society; choice or ignorance!

বছর দুয়েক আগের কথা,,। ব্যাচেলর লাইফ,,ছোটো খাটো একটা প্রাইভেট কোম্পানিতে চাকরী,, মা বাবা আর ছোটো বোনকে নিয়ে ছোটো সুখের সংসার,। বাবা একটা জুটমিলে রিটায়ার করে প্রবিডেন্ট ফান্ডের সামান্য টাকায় দুকামরার একটা বারিও করেছে,,সামান্য কিছু দেনাও হয়েছে,,। ভবিষ্যৎএর স্বপ্ন দেখছি আমার গার্লফ্রেন্ড প্রীয়াকে নিয়ে,,। আমাকে খুবই ভালবাসে প্রীয়া। আমরা ঠিক করেছি,, বাবার দেনাটা শোধ করেই বিয়েটা সেরে নেবো,,। রাতে আমাদের কথাও হয় ফেসবুকে,,। কম খরচে অনেক কথা,, মন চাইলে সারারাত,,। আমার ফ্রেন্ডলিষ্টে প্রায় কম বেশি করে একশো সদশ্য। সকলের সাথে না হলেও অনেকেরই সাথে নিওমিত কথা হয়,,। এমনি অল্প কথা বলা একজন ছিলো,, বিথী শর্মা,,। অবাঙালী হলেও পরিস্কার বাংলা বলতে পারতো,,। আমি পাঁচটা sms করলে একটার উত্তর দিত,,। কখনো সুধুই লাইক দিয়ে ছেরে দিত,,। প্রফাইলের ছবিটাও খুব সুন্দর,, এককথায় সুন্দরী বলা চলে,, বড় বড় চোখ মুখে মৃদু হাঁসি সত্তিই সুন্দর,,। কোম্পানিতে লেবারদের দাবিদাবা আর ইউনিয়ান বাজিতে বন্ধই হয়ে গেল কোম্পানি,,। একেবারেই কর্মহীন হয়েগেলাম,,। ভাবলাম একটা কাজ ঠিকি জুটিয়ে নেব,,। এমন ভাবনা আমার মিথ্যে হয়ে গেল,,। এইভাবে কএক মাস কেটে গেল,,একে একে মায়ের গয়না দোকানে বাঁধা পড়লো,,। সংসার বাঁচাতে রাজমিস্ত্রির জোগারের কাজের জন্য কথা বললাম,,সেখানেও নিলোনা,, কারন কাজের কোনো অভিজ্ঞতাই নেই,,। সাফ জানিয়ে দিল তোমার দ্বারায় একাজ হবেনা,,। অবস্থা বুঝে মুদিওয়ালাও ধার দেওয়া বন্ধ করে দিল। ছোটো বোনটা ক্লাস টেনে পড়ে,,। সেও দেখি খিদে নেই বলে, কিছু না খেয়েই স্কুলে চলে গেল,,। মা বাবার মুখের দিকে তাকাতেই পারছিনা,,। গত রাতে প্রীয়াও বলে দিল,,অন্য জায়গায় নাকি বিয়ের ঠিক হয়ে গেছে,,। আর যেন কখনোই ডিস্টার্ব না করে,,। যাকে এখন সবচেয়ে বেশি প্রয়জন,, সবার আগে সেই পালিয়ে গেল,,। বন্ধুরাও প্রায় সবাই বেকার,,।কিন্তু ওদের কেউ না কেউ আছে সংসার চালানোর মত,,। তবুও ওরা অনেক সাহায্য করেছে,,। অভাব যে এত ভয়ঙ্কর তা আগে যানাছিলনা,,। মায়ের মুখঝামটা,, বাবার শুকনো মুখের কটাক্ষ দৃষ্টি,,যে বোনটার সারাটা দিন টুকটাক করে মুখ চলতো - সে আজ খালি পেটে বইয়ে মুখ গূঁজে পরে রয়েছে,,। আর পারছিনা,, এভাবে বাঁচার কনো মানেই হয়না,,। আজেবাজে উল্টোপাল্টা চিন্তা মাথার মধ্যে ঘুরপাক খাচ্ছে,,। অনেক রাতে বারি ফিরেছিলাম,,বন্ধুর খাওয়ানো চা বিস্কুট অনেক আগেই হজম হয়ে গেছে,,। এবার বিষ খেতে ইচ্ছা করছে,,, হাঁ এটাই একমাত্র পথ,, অসহ্য যন্ত্রণার হাত থেকে মুক্তির উপায় এটাই,,। হাঁ সুইসাইড,, মাথার মধ্যে ফিক্সড হয়ে গেল,, এছাড়া আর কিছুই মাথায় আসছেনা,,। পকেট থেকে মোবাইলটা বের করে ফেসবুক খুললাম,,ফ্রেন্ড লিষ্টের বন্ধুরা যারা অন লাইন ছিলো,, তাদের মধ্যে প্রীয়া ছিলো এক নাম্বারে,,তাই ওকেই প্রথমে লিখলাম গূড বাই প্রীয়া, চললাম,,,,, হুঁহঃ,,,,,নো রিপ্লাই,,হয়তো ব্যাস্ত আছে অন্য কারোর সাথে,,,। তারপর পরপর প্রত্যেককেই একই কথা লিখে ফরোয়ার্ড করলাম,,"গুড বাই বন্ধু চললাম ",,,।তার মধ্যে অনেকে অনেক রকম রিপ্লাই করলো,, কেউ - ভাল থাকিস,,,। কেউ - কোথাও বেড়াতে যাচ্ছো নাকি,,? কেউ - কনো কাজের জন্যে দেশ ছাড়ছো নাকি,,? কিন্তু একমাত্র বিথীই ব্যাপারটা ঠিকি আন্দাজ করেছিলো,,। যে কিনা অনেক কথা বলার পর তবে একটা রিপ্লাই দেয়,,। সে পরস্পর প্রশ্ন বাণে আমাকে ঘায়েল করে ফেলল,,। একের পর এক প্রশ্ন - এই তুমি কোথায় যাচ্ছো,,? তোমার গুড বাই বলার ধরনটা একটু অন্য রকম,,। জীবন থেকে পালিয়ে যাচ্ছোনা তো,,? কি হয়েছে তোমার,,? প্রেমীকা ধোকা দিয়েছে,,? সুইসাইড করার কথা ভাবছোনা তো,,? আমি আশ্চর্য হয়ে গেলাম, আগে যেটুকু কথা হয়েছে,, হায়,,হ্যালো,,কেমন আছো,, ভালো আছি ব্যাস এইটুকুই,,। এর পরের কথার কখনই উত্তর পাইনি,,আর আজ,,! সাত পাঁচ ভাবতে ভাবতে কখন যে হুঁ লিখে সেন্ড করে ফেলেছি,,,,, আবার শুরু হয়ে গেল,,- এ মা তুমি কি বোকা,,। এই সামান্য কারনে কেউ সুইসাইড করে নাকি,,? বছরের ঋতু পরিবর্তনের মতই প্রেমীক প্রেমীকারা আসে আর যায়,, ছাড়ো ওসব কথা,, তুমি চাইলে আমাকে ভালোবাসতে পারো,। আমাকে দেখতেও খুব খারাপ নয়,,। কথা দিচ্ছি মৃত্যুর আগে পর্যন্ত বেইমানি করবোনা,,। এবার আমি একটু ঝেরে কাশলাম,,। সংক্ষেপে আমার সব সমস্যা গুলো বললাম,,। সব শুনে যে কথা গুলো বলল, - তুমি একজন বীর যোদ্ধা,, তোমার লড়াইয়ের উপরে আরো তিন তিনটি প্রাণীর বাঁচা মরা নির্ভর করছে,,। তুমি নিশ্চিত যানবে,, তোমার জীবনে যখন ঘনো অন্ধকার,, ঠিক তার পরেই ভগবান তোমার জন্য একটি সুন্দর সকাল রচনা করে রেখেছেন,,। আরে বোকা ভগবান এভাবেই পরিক্ষা নেন,, তোমাকে যে উত্তির্ন হতেই হবে,,। কথা শেষ হতেই বিথীর একটা সেলফি ভেসে উঠলো মবাইলের স্ক্রিনে,,। আমাকে ছুঁয়ে কথা দাও এ লড়াইটা তুমি লড়বে,,। আমার ভালবাসার দিব্বি, এ লড়াই তোমাকে জিততেই হবে,,। বিছানার উপর মোবাইলটা রাখা,,পর পর লেখাগুলো ফুটে উঠছে,,মনে মনে লেখাগুলো আউরে যাচ্ছি,,। কি উত্তর দেব কিছু ভেবে পাচ্ছিনা,,। হাতের আঙুল গুল যেন অসার হয়ে গেছে,, আবার - কিহল কিছু তো বল,,। অনেক কষ্টে টাইপ করলাম,, আমি তোমার সঙ্গে দেখা করতে চাই,, বিথী - হাঁ নিশ্চই,, বল কবে কোথায় দেখা করতে চাও,,? বললাম - কাল বিকেল পাঁচটায় বাবুঘাটে নদীর ধারের পার্কে,,। বিথী - তুমি ঠিক আসবে তো,,? তোমার নংটা দাও যদি তোমার আসতে দেরি হয়,,। আমি কিন্তু অপেক্ষা করবো,,। বললাম - হাঁ ঠিক আসবো,, সঙ্গে ফোননং টাও টাইপ করে দিলাম,,। বিথী - তাহলে এখন ভালছেলের মত ফোন রেখে ঘুমিয়ে পরো,,কাল তাহলে আমাদের দেখা হচ্ছে,,। Good night Sweet dreams..বলে অফলাইন হয়েগেল,,। আমিও ফোন বন্ধ করলাম,,। ভাবতে লাগলাম,, কে এই বিথী,,? তা সে যেই হোক,, ওর কয়েকটা কথায় জীবনের সিদ্ধান্তটাই পাল্টে গেল,,। থেমে যাওয়া গাড়ি যেন নতুন করে আবার গতি ফিরে পেলো,,। আর প্রীয়া সেও তো একটা মেয়ে,, কত তফাৎ দুজনের মধ্যে,,। কখন যেন ঘুমিয়ে পড়লাম,,। সকালে দরজা ধাক্কায় ঘুমটা ভেঙে গেল,,খুলে দেখি আমার এক বন্ধু সুব্রত,,। বলল আমার দাদা আমার জন্য একটা কাজ দেখেছে,, কিন্তু আমি চাই কাজটা তুই কর,, এই মুহুর্তে কাজটা তোর খুবই দরকার,, কলকাতায় এক চায়ের গোডাউনে লেবার দেখাশুনার কাজ,,মাইনে সাত হাজার দেবে,, এক তারিখে জয়েন্ট,, পাঁচ দিন বাকি,,। বললাম - কি বলে যে ধন্যবাদ দেবো,,। সুব্রত - ওসব পরে হবে,, আমি দাদাকে ব্যাবস্থা করতে বলছি,,। চলে গেল সুব্রত,,। বিথীর কথা যে এত তারাতারি ফলে যাবে তা স্বপ্নেও ভাবিনি,,। আজ বিকেলে বিথীর সাথে দেখা করতেই হবে,,। যথারীতি পাঁচটার আগেই যথাস্থানে পৌঁছে গেলাম,,চোখ পরেগেল বিথী আমারো আগে পৌঁছে আমার জন্য অপেক্ষা করছে,,। তাকিয়ে আছে আমারই দিকে,,।যেন প্রয়জনটা ওরই,,। একটা হালকা হাঁসি দিয়ে বলল - এইতো ঠিক সময়ের মধ্যেই এসেগেছে আমার যোদ্ধা,, ঠিক এইভাবেই সময়ের মূল্য দিও,,। ওর কথায় বুকটা ভরেগেল,,। ওর চোখের দৃষ্টি এতোটাই তিক্ষ্ণ যে, আমার চোখের দরজা দিয়ে ঢুকে মনের ভেতরটাও দেখতে পাচ্ছে,,। দুজনেই একটা বেঞ্চে গিয়ে বসলাম নদীর দিকে মুখ করে,,। সুর্য্য ডুবছে,, লাল আবিরের রঙে আকাশটা রাঙিয়ে দিয়েছে,,। আগে কখনো এভাবে আকাশকে দেখিনি,,। হঠাৎই বিথী বলে উঠলো,, ও যোদ্ধা বলো কি যেন বলবে বলে ডেকেছিলে,,। বললাম - আমার মনেহয়,, যেটা বলতে চাই তা আর বলার অপেক্ষা রাখেনা,, তুমি আগে থেকেই সব যেনে গেছো,,। বিথী - হাঁ যানি,, বললাম - কি যানো,,? বিথী - এইযে সামনেই ফুচকাওয়ালা,, ঝালমুড়ি ওয়ালারা দোকান দিয়েছে,,। তোমার খুব ইচ্ছে করছে আমাকে মন ভরে খাওয়াতে,,। কিন্তু তোমার পকেট একেবারে গড়েরমাঠ,, খাওয়াতে পারছোনা তাই মনে মনে কষ্ট পাচ্ছ,,। আমি এক লাফে উঠে ডাঁড়িয়ে পরলাম,,আর মুখের দিকে এক দৃষ্টিতে তাকিয়ে আছি - আর ভাবছি,, আরে সত্তি সত্তিই তো আমি এটাই ভাবছিলাম,,। কৌতুহল আর চাপতে পারালাম না,, বলেই ফেললাম,, এই তুমি কে বলতো,,? খুব সহজ ভাবেই উত্তর দিল - তোমার প্রেমীকা,,। হাতটা ধরে এক ঝটকায় আবার পাসে বসিয়ে দিল,,। আর বলল - যা বলি মন দিয়ে শোনো,, প্রশ্ন করলো - যানো আমাদের প্রেমের মেয়াদ কতদিনের,,? আমি - না যানিনা,, বিথী - মাত্র এক দিনের,,। তুমি কি যানো আমার প্রেমীকের সংখা কত,,? আমি - না যানিনা,, বিথী - তোমাকে নিয়ে 210 জন,, তুমি কি যানো,, কেন আমি এক দিনের বেশি সম্পর্ক রাখিনা,,? আমি - না,, বিথী - কারন, একটা যোদ্ধা তৈরী করতে আমার কাছে এক দিনই যথেষ্ট,,। এবার বল আমার বীর যোদ্ধা,, তুমি কি যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত,,? কথাগুলো শুনে আমার যেন দম আটকে গিয়েছিলো,, যেন অন্য কনো জগৎএ বিচরণ করছিলাম,,।আমার কাঁধ দুটো ধরে ঝাঁকিয়ে দিয়ে বলল,,- শুনছো আমার কথা ? তুমি কি প্রস্তুত,,? আমি - হাঁ আমি অনেক আগেই প্রস্তুত,,। দুহাতে আমার গাল দুটো ধরে বলল চোখ বন্ধকরো,, করলাম - ঠোঁটে চুম্বনের পরশ পেলাম,,। সারা শরির মনে এক ঐশ্বরিক অনুভুতির স্বাদ পেলাম,, সেটা ভাষায় বর্ণনা করতে পারবোনা,,। তখন সন্ধ্যা হয়ে এসেছে,,। বিথী আমার দিকে দুহাত বারিয়ে বলল,, - তুমি চাইলে আমাকে আলিঙ্গন দিতে পারো,,। আমি আশে পাশে দেখলাম,, অনেক মানুষের ভীড়,। বিথী - আমি কাউকে তোয়াক্কা করিনা,, আমি মাথা নেরে না বলে দিলাম,,। এবার আরো কাছে ঘেঁসে বসলো,, শরিরের আধখানা অংশ আমাকে ছুঁয়ে আছে,,। শান্ত গলায় - আবার প্রশ্ন - যানো যোদ্ধা আমার আয়ু আর কত দিন,,? এবার আমি ভালকরে মুখের দিকে তাকালাম,, নিয়ন আলোয় চোখের কোনে জল চিকচিক করছে,, আর মাত্র 119 দিন,, আমি ক্যান্সারে আক্রান্ত,,। যোদ্ধা আমি মরতে চাই না,, আমি বাঁচতে চাই,, আমার দিন একটা একটা ফুরিয়ে আসছে,, আমার ভেতরটা আমার অজান্তেই কেঁদে উঠলো,, চোখের জলকে আর আটকে রাখতে পারালাম না,,। বিথী - কি হল যোদ্ধা,,? তোমার চোখে জল,,? তুমি না আমার বীর যোদ্ধা,, আর বীরের চোখে জল শোভা পায়না,,। আমি বললাম - নিজের জন্য নয়,, তোমার কথা ভেবেই কাঁদছি,, তোমার যে মহৎ উদ্দেশ্য, তার কথা ভেবে কাঁদছি,, এখন আমি বুঝতে পারছি তোমার এই একদিনের ভালবাসায় একটা মানুষ একশো বছর পর্যন্ত বাঁচার শক্তি ফিরে পাবে,,। তোমার অবর্ত্তমানে যারা তোমার এই ভালবাসা থেকে বঞ্চিত হবে,, তাদের কথা ভেবে কাঁদছি,,। এবার বিথীও কেঁদে ফেলল,, বলল - বাহঃ আমার যোদ্ধা এবার পুরো পুরি তৈরী,, যোদ্ধা কয়েকটা জরুরী কথা,,- আমি আর কোনোদিন তোমার সঙ্গে দেখা করবোনা,,প্রয়জনে আমি তোমাকে ডেকে নেব,,। ফেসবুকে আমার উপস্থিতি দেখেও কখনো sms করবেনা,, আমার নামের পাশে ঐ সবুজ বাতিটা যতদিন দেখতে পাবে,,যানবে ততদিন আমিও আছি,, তোমার সাথেই আছি,, কখনো যদি আমার জন্য মনটা কেঁদে ওঠে,, এই সময়,, এইখানে,, এইই বেঞ্চে এসে বসো,,। আর আবিরে রাঙানো ডুবে যাওয়া ঐ সুর্য্যটাকে দেখো,,। একটা দির্ঘশ্বাস ছেরে বলল,,যোদ্ধা এবার আমাকে উঠতে হবে,,আমার অনেক কাজ আর হাতে সময় খুবই কম, তুমি অনুমতি দাও,,,,,,,, আমি বললাম - তোমায় বেঁধে রাখার কনো ক্ষমতাই আমার নেই,,। তুমি যাও আবার নতুন কনো যোদ্ধার খোঁজে,,। আমার কাঁধটা আলতোভাবে ঝাঁকিয়ে চলেগেল,,। বিথী হারিয়ে গেল মানুষের ভীড়ে,, আমি বিথীতে মহিত হয়ে গেলাম,, আমি যেন আর আমার মধ্যে নেই,,সম্পুর্ন এক অন্য মানুষ,,। পরেরদিন সকালে একটা ম্যাসেজ পেলাম - কোলকাতার এক অনামী পাখা কারখানায় প্রডাকশন ম্যানেজারের পদের চাকরীর জন্য,, আর, চাকরীটা পেতে কনো অসুবিধে হয়নি,,। ছোট্ট কারখানা,, মালিকের অবর্ত্তমানে আমাকেই সব কিছু দেখতে হয়,,। জীবনটা আগের মতই আবার স্বাভাবিক হয়ে গেল,,। রোজ রাতে ফেসবুক খুলে বিথীর উপস্থিতি লক্ষ করি,,জ্বলজ্বল করছে সবুজ আলোটা,, বিথী এখনো অনলাইন আছে,,। অনেক ম্যাসেজ আসে,, কনো ম্যাসেজই আর পরতে ইচ্ছা করেনা,, অনেক ম্যাসেজের ভীড়ে প্রীয়ারও ম্যাসেজ আসে,,আর দেখিনা,,সুধু সবুজ আলো ছাড়া,,। যানি এটাও একদিন হঠাৎই নিভে যাবে,, আর জ্বলবেনা,,। এমনি একদিন তাকিয়ে আছি সবুজ আলোটার দিকে,,হঠাৎই ম্যাসেজ এলো বিথী শর্মার প্রোফাইল থেকে,, বুকটা ছ্যাঁত করে ঊঠলো,, তাতে লেখা,,,- যোদ্ধা,, যদি শেষ দেখাটা দেখতে চাও, তারাতারি চলে এসো,, সময় খুবই কম,,। নিচে পাটনা'র একটা ঠিকানা দেওয়া,,। তখন অনেক রাত - ভোর হতেই বেরিয়ে পরলাম একরাশ উৎকন্ঠা নিয়ে,,। ঠিকানায় পৌঁছতে কনো অসুবিধে হয়নি,,। কলকাতায় বড়বাজারে মামার কাছে থাকতো,, এটা নিজের বারি,, অনেক পুরানো আমলের বারি,, চারিদিক ঘেরা,, মাঝে বিশাল বড় দালান,, বাইরে ভিতরে প্রচুর মানুষের ভীর,, সবার চোখেই জল,, কোথায় বিথী,, মনটা উৎকন্ঠায় ছটফট করছে,, ভীড় ঠেলে ভিতরের দিকে যাচ্ছি,, হঠাৎ কেউ আমার হাতটা ধরে ফেললো,, দেখি জল ভরা চোখে আমার মালিক,, ভীড় কাটিয়ে আমাকে নিয়ে গেল বিথীর কাছে,, দালানের একপ্রান্তে পালঙ্কের উপরে রানীর মত সুয়ে আছে বিথী,, বড় বড় চোখের কোনে কালি,, শুকনো মুখ,,বিছানার সঙ্গে প্রায় মিশেই গেছে,, কিন্তু ঠোঁটের কোনে সেই অম্লান হাঁসি এখনো বর্ত্তমান,, বিথী বলল - আমার পাসে বসো,, আমি বসলাম,, আমার হাতটা নিয়ে একটা চুমু দিয়ে বলল,, যানো যোদ্ধা আমি তোমায় রোজ দেখতাম তুমি তাকিয়ে আছো আমার প্রফাইলের ঐ সবুজ বাতিটার দিকে,, আজ থেকে ওটা আর জ্বলবেনা,, আমি কথা দিয়েছিলাম বেইমানী করবোনা,,, দেখো - আমার শেষ দিনেও তোমাকে আমার ভালবাসা দিতে পেরেছি,, আমি আবার আসবো তোমাদের মাঝে,, আবার আমি যোদ্ধা রুপে তোমাদের পাসে পাবো,,। আর এইযে এখানে এতো মানুষ দেখছো,, এদের মধ্যে অনেকেই তোমার মত বীর যোদ্ধা,, আজ আমার একটুও কান্না পেলনা,, কারন - বিথী কথা দিয়েছে আবার আসবে,, বিথী বলল এবার তুমি যাও,,আর এক যোদ্ধা এসেছে শেষ দেখা করতে,, আমি আর পেছন ফিরে তাকাইনি,, আমি চলে যাওয়া সইতে পারিনা,,। এখনো আমি প্রতি রাতে একবার করে দেখি - বিথীর প্রোফাইলটা যদি একবার জ্বলে ওঠে সবুজ বাতিটা,,,,,,,,,"

Saturday, July 9, 2016

গার্লফ্রেন্ড বা বয়ফ্রেন্ড থাকা মানেই ভালোবাসা না

গার্লফ্রেন্ড বা বয়ফ্রেন্ড থাকা মানেই ভালোবাসা না। ভালোবাসা মানে জীবনে এমন একজন থাকা, যার প্রতি আপনার অন্ধ বিশ্বাস আছে। আপনি যদি তাকে সর্বোচ্চ পরিমান কষ্ট দেন, তবুও সে আপনার হাত ধরে রাখবে,আর বলবে "আমি আছি, আমি ছিলাম আর আমি সব সময় তোমারি থাকবো।" এটাই ভালোবাসা, এটাই জীবন!!! ♥ প্রতিটা মানুষের জীবনে এমন একজন দরকার যে তাকে শাসন করবে।
সকাল গড়িয়ে দুপুর পর্যন্ত না খেলে জোর করে খেতে পাঠাবে।সামনে থাকলে মুখে তুলে খাইয়ে দিবে <3 বৃষ্টিতে বেশি ভিজলে কপট চোখ দেখাবে। পর মুহূর্তে বলবে, আচ্ছা যাও ভেজো। জ্বর আসলে বলবে, ওষুধ না খেলে কিন্তু নেক্সট এক উইক কথা বলবো না। রাতে সময় মত ঘুমাতে না গেলে নিজের
ফোন বন্ধ রেখে বলবে, চোখ বন্ধ। ঘুম চলে আসবে। আমি বলে দিচ্ছি ঘুমকে চলে যেতে তোমার কাছে
ব্যস্ত রাস্তা পার হওয়ার আগে অন্তত একবার বলবে, সাবধানে পার হয়ো!! প্রশ্ন না করে প্রতিটা কথা মন দিয়ে শুনে বলবে, প্যাচাল অনেক হল। এবার মাথা থেকে ভুত নামাও সব। ফাইনালের আগে একটা কড়া ধমক, ফেসবুকে দেখলে আমার আইডি থেকে ব্লক করে দিব বলে দিলাম। পরে হাজার বললেও অ্যাড করব না। শাসন শুধু ভালবাসার মানুষ করবে এমনও না। একজন বন্ধুও হতে পারে। "সে" হতে পারে।
"তুমি" হতে পারো।
একটা জীবন পার করতে সব সময় সাথে থাকা মানুষটা হতে পারে। সবার জীবনে এমন একজন থাকুক। না আসলে আসুক। যে তাকে তার প্রতিটা ভুলের জন্যে বাকি সবার মত ভুল না বুঝে বলবে, ঘুরে আসি চলো কোথাও থেকে <3 যে সারাদিন রাত চ্যাটবক্সে আপনার একটা রিপ্লাইয়ের আশায় একের পর এক ম্যাসেজ দিতেই থাকে তাকে কি সুন্দর " ইমোশনাল ননসেন্স" বলে আপনি ইগ্নোর করেন তাইনা? ঘন্টার পর ঘন্টা যে আমাদের গভীররাতের ওয়েটিং কলের এইপাশে ওয়েট করে তার কল টাকে কত নরমালি আমি আপনি ব্ল্যাকলিস্টে ফেলে রাখি। সারাদিন আমাদের ভালবাসি বলতে বলতে যারা গলা শুকিয়ে ফেলে তাদের পাগলামিকে "ন্যাকামি" বলে উপহাস করতে দুসেকেন্ড ও সময় নেই না আমরা। কত সহজে আমরা অন্যের চোখের জলকে ভন্ডামি বলে ফেলতে পারি, গভীর আবেগ কে অভিনয় বলে পাশ কাটিয়ে যেতে পারি, আমার প্রতি তার দূর্বলতাকে চোখ বুজে অবহেলা
করতে পারি। আমরা ব্যার্থ। জীবনে আমরা সেই ইমোশনাল নন্সেন্স, পাগলামি করা ন্যাকা আর চোখের জল ফেলা দামী মানুষ গুলোকে ধরে রাখতে জানিনা।তবে আমাদের জীবনে এ ধরনের পাগল
গুলোর খুব দরকার। একটু বেশীই দরকার। ঠিক সময়ে ঠিক মানুষকে চিনতে না পারা বিরাট
পাপ। ভুল মানুষের পিছে এক জীবন পার না করে ঠিক মানুষ টাকে দু দন্ড সময় দিয়ে দেখা দরকার জীবন কত পরিপাটি ।

Sunday, July 3, 2016

যাকে সত্যি কারের ভালবাসা যায়,তাকে সব দিক দিয়ে ভালবাসা যায়।

My site in android apps. https://drive.google.com/open?id=0BwEayn0XhSZsMnNJUThWc0YtcWM যাকে সত্যি কারের ভালবাসা যায়,তাকে সব দিক দিয়ে ভালবাসা যায়। ভালবাসা শুধু ভাল দিক দিয়ে হয় না।হোক সে খারাপ। একজন মানুষকে ভালবাসার পর যদি জানতে পারো তার কিছু নেগেটিভ দিক আছে বা অতীতের কোন খারাপ দিক আছে।তখন তুমি তার সাথে সম্পর্কটা ভেঙে না দিয়ে তোমার সত্যিকারের ভালবাসা দিয়ে তাকে পরিপূর্ন মানুষ হিসেবে গড়ে তুলো। হতে পারে সে ছেলে বা মেয়ে,তোমার সত্যিকারের ভালবাসা পেয়ে তার জীবন পুরোপুরি বদলে ফেলেছে।

Thursday, June 30, 2016

The Secret

My site in android apps. https://drive.google.com/open?id=0BwEayn0XhSZsMnNJUThWc0YtcWM www.myustory.blogspot.com/ From- THE SECRET BY- KOUSTAV PAUL www.facebook.com/koustav97 ভালবাসা অর্জনের জন্য…নিজেকে ভালবাসা দিয়ে পূর্ণ করুন যতক্ষণ না আপনি একটি চুম্বকে পরিণত হচ্ছেন। অন্তরঙ্গ সম্পর্কের ক্ষেত্রে এটা বোঝা গুরুত্বপূর্ণ যে কোন মানুষটি আসছেন এই সম্পর্কের অভ্যন্তরে, কেবল আপনার সঙ্গী হিসাবে নয়। নিজেকেও ভাল করে বোঝা দরকার। যদি আপনি নিজেই নিজের সঙ্গ ভাল ভাবে উপভোগ করতে না পারেন তবে অন্য লোক কিভাবে করবে? আবারও সেই আকর্ষণের নীতি বা রহস্যই আপনার জীবনে সেই অনুভুতি আনবে। আপনাকে সত্যিই খুব স্পষ্ট হতে হবে। আমি আপনার ভাবার জন্য একটা প্রশ্ন রাখব- আপনি কি নিজের সঙ্গে সেরকম ব্যবহার করেন যা অন্যের কাছ থেকে পেতে চান? আপনি অন্যের কাছ থেকে যেরকম ব্যবহার চান নিজের সঙ্গে সেরকম ব্যবহার না করলে আপনি বর্তমান অবস্থা কিছুতেই বদলাতে পারবেন না। আপনার কাজ হল আপনার শক্তিশালী ভাবনা, কাজেই যদি আপনি নিজেকে শ্রদ্ধা আর ভালবাসা না দেন তাহলে আপনি সেই সংকেত পাঠাচ্ছেন যে আপনার যথেষ্ট গুরুত্ব নেই, যোগ্যতা নেই। উপযুক্ত নন। এই সংকেত অবিরাম প্রচারিত হতে থাকবে এবং আপনার জীবনে কেবলই এরকম পরিস্থিতি আসবে যে কেউ আপনার সঙ্গে উপযুক্ত ব্যবহার করছে না। তাই নিজেকে কখন ছটো মনে করবেন না।

Thursday, May 19, 2016

তুমি ভালোবাসার জন্যে সম্পূর্ণভাবে অন্যের উপর নির্ভরশীল হয়ে থাকছো

This is copy Right From Facebook @ https://www.facebook.com/shemul.missyou/?fref=nf
অনেকেই বলতে শুনি-
"আমি ওকে ভুলতে পারছি না!! আসলে ভুলতে চাইছিই না...আমি জানি, ও আমাকে ভালোবাসে না,
তারপরেও আমি ওকে ধরেই বাঁচতে চাই.."
আমার খুব সাধারণ কিছু কথা মনে হয় তখন, যাকে ধরে তুমি বাঁচতে চাও সে কি চায়? উত্তর হয়, না সে আমাকে চায় না! প্রশ্ন: সে তোমাকে না চেয়ে অন্য যা চাইছে তাতে কি সে সুখী আছে?
উত্তর, হ্যাঁ , ও আমাকে ছাড়াই ভালো আছে!!
ও আমার কথা আর ভাবেই না!! কীভাবে পারে একটা মানুষ!!
যদি প্রশ্ন করা হয়, তুমি কেমন আছো? উত্তর হয়, আমি ভালো নেই... আমি খুব কষ্টে আছি frown emoticon সারাদিন কিছু করতে পারি
না...পড়তে পারি না, কোন কিছুতে মনোযোগ দিতে পারি না...
প্রশ্ন, কিন্তু তোমার কি এইরকম
থাকার কথা ছিলো?
উত্তর, না, আমার অনেক ভালো থাকার কথা ছিলো, আমার
পরিবার - বন্ধুরা আমাকে ভালোবাসে তারপরেও
আমি ভালো থাকতে পারছি না...অথবা, কেউ ভালোবাসে না আমায়, শুধু ও ভালোবাসতো বলেই
আমি ভালো ছিলাম...আমার ভালো থাকার কথা ছিলো!!
প্রশ্ন, তাহলে খারাপ কেন আছো?
যেটা থাকার তোমার কথা না, যে আঘাত তুমি ডিজার্ভ করো না, তা যেচে পড়ে কেন নিতেই থাকবে!
নিতেই থাকবে?
কিছু কিছু সময় আসলে নিজেকে ভালোবাসা খুব খুব দরকার ... অন্য
কাউকে ভালোবাসতে গিয়ে নিজেকে
ভালোবাসতে ভুলে গেলে কষ্ট
পেতেই হবে...কারণ, তুমি ভালোবাসার জন্যে সম্পূর্ণভাবে অন্যের উপর নির্ভরশীল
হয়ে থাকছো ... তোমার আনন্দ হচ্ছে যখন কেউ তোমাকে
ভালোবাসছে, আর কষ্ট হচ্ছে কারণ সেই ভালোবাসাটা সরে যাচ্ছে!!
হ্যাঁ, মানুষ হিসেবে আমরা প্রত্যেকেই ভালোবাসা পেতে চাই ..কিন্তু অন্যের কাছে চাইবার
আগে নিজের কাছে নিজের জন্যে এতোটুকু ভালোবাসা আমরা কখনো চেয়ে দেখেছি কি?
যে ভিক্ষুক তোমার কানের কাছে কিছু দেয়ার জন্যে ঘ্যান ঘ্যান
করতেই থাকে, তার প্রতি তুমি বড়জোর করুণা অনুভব করো,
ভালোবাসা নয় ... একটা জিনিস কী, অন্য কারো কাছে ভালোবাসা পাবার জন্যে সারাক্ষণ
ঘ্যান ঘ্যান করতে থাকলে হয়তো মাঝে মাঝে যোগাযোগ রাখার অজুহাতে করুণা ভিক্ষা পাবে, কিন্তু ভালোবাসা নয়!!

85% Meye Sarthopor

১টি ছেলে বিয়ে করার জন্য মেয়ে
দেখতে গেল।মেয়েটা তার ভাল
লাগলো। তারপর সবাই সবার সবকিছু খোজ
খবর নিলো।
তার ১৫ দিন পর ছেলেটার পক্ষ থেকে
মানুষ জন গিয়ে মেয়েটার হাতে আংটি
পড়িয়ে দেয় আর বিয়ের কথা পাকা করে
আসে।তারপরে তাদের মাঝে ফোনালাপ
চলতে থাকে।
তার ৩ দিন পর ফোনের আলাপ আলোচন :-
ছেলে:- আচ্ছা তুমি কি আরও পড়তে
চাও ???
মেয়ে :- হ্যা... কারণ আমার আশা ছিল
ডাঃ হবো।
ছেলে:- ডাঃ হলে তুমি খুশি হবে ???
মেয়ে :- হ্যা.. এটাই আমার সবচেয়ে বড়
চাওয়া খোদার কাছে। আর চাইলে কি সব
পারবো !!!
ছেলে:- কেনো ???
মেয়ে :- কারণ.. ১। আমার বিয়ে ঠিক হয়ে
গেছে.. ২। আমার বাবার এত টাকা নাই।
ছেলে:- আমার তো আছে। তোমাকে
আর কিছু দিতে পারি আর না পারি।তবে
তোমার আশাটা আমি পুরন করব !!! তুমি কি
পড়তে রাজি ???
মেয়ে :- হ্যা. কিন্তু বিয়ের আর মাএ ৯ দিন
বাকী..সেটার কি হবে ???
ছেলে:- এটা আমার উপর ছেড়ে দাও !!!
মেয়ে :- OK.
ছেলে তার ফেমিলির সবাইকে বুঝিয়ে
বলে, আর সবাই রাজি হল। মেয়ের লেখা
পড়ার জন্য সব খরচ ছেলেটা দিচ্ছে এবং
দেখা শুনা ঠিকমত ছিল কিন্তু কিছু দিন পর ।
মেয়ে :- আমার ১টা কথা রাখবে ???
ছেলে:- হ্যা. বল আমি কি করতে পারি ???
মেয়ে :- কিছু মনে করনা। আমার সাথে
আর দেখা করিওনা !!!
ছেলে:- কিন্তু কেনো ???
মেয়ে :- তোমাকে দেখলে নিজেকে
ধরে রাখতে পারিনা। ওদিকে আমার
পরীক্ষার ২ বছর বাকী। যদি,,ফেল করি
সমাজে মুখ দেখাতে পারবো না। আর
তোমার টাকা ও কষ্ট বিথা যাবে।
ছেলে:- OK. কিন্তু ফোনে কথা বলবা
না ???
মেয়ে :- হ্যা.
ছেলে:- ok.
২ বছর পর মেয়েটা পরীক্ষা দিল এবং পাশ
করল।সেই খুশিতে মেয়ের বাড়ীতে
মেহমান বরপুর।কিন্তু ছেলেটাকে বলল না
।কারণ এখন ঐ ছেলেকে স্বামী হিসেবে
সবার সামনে পরিচয় করাতে পারবে না
বলে ।তার ১৫ দিন পর মেয়েটা একটি
চেম্বার নিয়ে বসে।তখন জানতে পেরে
ছেলেটা তাকে ফোন করলে,মেয়েটা
ফোন কেটে দেয় এবং বন্ধ করে দেয়।
ছেলেটা তার বাড়ীতে যায় । আর মেয়ে
তাকে বলল,,,,,,আমাকে ক্ষমা করে দাও এবং
মনে কষ্ট নিওনা,, আমি তোমাকে বিয়ে
করতে পারবো না !!!
ছেলে:- কেন:???
মেয়ে :- কারণ তুমি আমার যোগ্য না এবং
লেখা পড়াও জানো না ।
ছেলে:- আমাদের ফেমিলি থেকে যে
সব ঠিক করা ???
মেয়ে :- ওটা আগে ছিল,,আমি এখন তা
মানতে পারবোনা ।
ছেলে:- দু চোখ ভরা কান্না নিয়ে বলল ।
OK. আমিতোমার জন্য দোয়া করি ভাল
থেকো,,,বলে চলে আসলো।
কিছু দিন পরে ছেলেটা অসুস্থ হয়ে পড়ে ।
আর ঐ দিকে মেয়েটা এক হাসপাতালের
বড় ডাঃ হয়।ছেলেটার অবস্থা খারাপ
দেখে ঐ হাসপাতালে নিয়েযায়।
ঐ খানে এক ডাঃ তাকে দেখে চিনে
ফেলে,,,,আর ওর ফেমিলির সবাইকে বকা
জকা করল। কারণ অনেক লেট করে
ফেলেছে। তখন মেয়েটা ঐ ডাঃ কে
বলল আপনি ওদের বকছেন কেন ??? তখন
ডাঃ বলল এই মানুষটা আজ থেকে প্রায় ৫
বছর আগে ওর বউয়ের ডাক্তারী পড়তে
টাকা লাগবে বলে ১টি কিডনী বিক্রি
করল। আমি নিষেধ করলে সে বলল আমার
বউ ডাঃ হলে আমাকে সে ভালো করে
দিবে,,,,,,,তা শুনে মেয়েটার চোখ থেকে
জল নেমে এল !!!
কি লাভ এখন কান্না করে,,আসলে সব
মেয়েরাই স্বার্থপর,,, তাদের স্বার্থের
জন্য তারা সব করতে পারে,,,

Wednesday, May 18, 2016

True Fact


Gitay ache, Kono manush Jodi onek hase tahole, vitor theke se onek koste ache/ekla. Jodi kono manush sob somoy suye thake tahole se vitor theke onek udash ache. Jodi kono manush nijer moner shokti dekhay r na kade tahole se vitor theke onek durbol, Jodi keu, kichu olpo kothay kede fele tahole se khub normom moner. Jodi keu sad hoye jay tahole se vitor theke khub ekla r jibone valobashar komti onuvob kore. Manush ke bojhjar chesta koro, jibon karor jonno theme thakena. Manush ke onuvob korau tumi tar jonno koto ta mulloban , Jibone jodi kichu pete chau tahole podhoti bodlau, lokho na. Rastay Jodi ‘Barat’ nachche tobe, horn diye diye porisanto hoyona, Gari theke nebe tumio tader sathe ektu neche nau tahole dekhbe monta santo hbe, time tao kete jabe. Ei kolijug e taka eto tao niche namte parena ja manush takar jonno neme jay…. Rastay Jodi mondir dekheo parthona na korleo cholbe, kintu Jodi rastay ambulance dekho tahole parthona obosoi korbe, hoyto tate Jodi koro ekjoner pran beche jay. Karon tar kache asha ache, se lokkho bar hereo jetar asha rakhe. Badam kheleo oto ta buddhi asena, joto ta dhoka kheeye asse. :’( ekta khub valo kotha, jeta jibon vor mone rakhbe, jeta tomar khushi thakar tomar kharap chaibar sob theke boro sasti, sundor manush ra sob somoy valo hyna kintu valo manush ra sob somoy e sundor hy. Rasta ebong somporko “Ek Sikke k do pahelu h”, Kokhono somporko bojay rakhte rakhte rasta hariye jay, Abar kokhono rastay cholte cholte somporko gore othe. Valo manush ke sob somoy tar modhur kothar dara e bujhte para jay. Valo kotha to deowal e o lekha thake, prithibi te kono kaj e kothin na, sudhu Biswas r prisrom er dorkar hoy. Prothome ami sahosi chilam ei jinno ami prithibi bodlate giye chilm, ajj ami buddhiman hoyechi,tai ami nije ke bodlachi. Amr biswas atota ache jeta thakar dorkar, Jodi mon komol hoye jay tahole ami akla hoye jabo. Khela tassh er hok ba jiboner hok, tomar ekka tokhoni dekhabe jokhon tomar samner jon saheb bar korbe. Char line bondhur jonne Jodi kono dekha korar sujog paowa jay, Jodi sei bondhuder songe katano somoy fire pai, cholo kichu somoyer jonno nijeder chockh bondho kori, ke jane sopno modhe Jodi sei fele asa shriti/din gulo abar fire pai. Hater muthoy jemon bali ke dhore rakha jay na, temoni jibon kokhon songo chere dey ku bolte pare na. Jibone joto kostoi hok na keno sob somay haste thakbe, karon jibonta jemoni hok na keno, jibon akbari ase, kokhono kono manuser jonno nijer jibon ke shes na kore egiye jao. “akta kotha mone rakbe , ja hoyeche valor jonno,ja hobe valo e hobe” Ke jane tumar jonno vobisowate aro valo kichu opekha korche. Valobasha pete gele kichu tag korte hoy, Biswas pete gele nista tag korte hobe, songo chito somay dite hobe. ke boleche valobasha sosta, sostay to haowao paowa jayna. Akta manusher Biswas sohoje gore othena, kintu seta vangte somayo lage na. karon valobasha, Biswas ebong songo ai tente jiniser upor tike thake. Akbar Biswas venge gele, shoje gore othe na…………………. Iswar, aj vaggo amar sathe ache seta tomar jonno, ami aj anonde achi tumari doyay , amar apan jon amar sate ache seta tomai kripay

Sunday, May 15, 2016

ভালোবাসার উদাহরন দেখতে চান???

ভালোবাসার উদাহরন দেখতে চান???
,
-- সেই মধ্যবিত্ত পরিবারটির দিকে
তাকান যেখানে রোজ খুশি থাকার
নাটক চলে।
,
-- আসল ভালোবাসা সেটাই,
যখন বাবার পকেটের শেষ কুড়ি টাকা
ছেলেটার হাতে দিয়ে বলে, 'কষ্ট করে
কলেজে হেটে যাবি না'।
.
-- সেটাই প্রকৃত ভালোবাসা,
যখন মা প্লেটের শেষ মাংসের
টুকরোটা
ছেলের পাতে দিয়ে বলে, 'মাংস খেতে
একদম ভালো লাগে না'
.
-- সেটাই প্রকৃত ভালোবাসা,
যখন ভাই তার ছোট বোনটিকে বলে
চিন্তা করিস না, 'বেতন পেলেই তোর
জন্য জামা কিনে দেব'!
.
-- ভালোবাসা তখনই পরিপূর্ণ,
যখন এটা নেই, সেটা নেই বলে
সারাদিন
ঝগড়া শেষে স্বামি স্ত্রী পাশাপাশি
শুয়ে
যখন স্ত্রী বলে, 'আসলে আমার কিছু
লাগবে না'
.
আমি ভালোবাসার ভিন্ন মানে খুঁজি।
তোমাদের কাছে ভালোবাসা মানে শুধু
প্রেমিক প্রেমিকার উত্তপ্ত চুম্বন।
তোমরা ভালোবাসা দেখ কিশোরির
উড়ন্ত চুলে, সদ্য ফোটা গোলাপের মত
দুটি গোলাপি গালে।
আর আমি ভালোবাসা খুঁজি একজন
মজুরের ০৮ টাকায় কেনা নুনের
প্যাকেটে।
.
-- যে বোন তার ০৬ মাসের শিশুটিকে
কোলে নিয়ে সারাদিন ইট ভাঙ্গে,
ভালোবাসা সেখানেই খুঁজে পাই।
,
-- সারাদিন কষ্ট করে যখন কোন
রিক্সাচালক একটা মাঝারি সাইজের
রুই
কিনে বাড়িতে গিয়ে বলে, 'খুব সস্তা
পেলাম, তাই কিনলাম।
স্ত্রী হেঁসে বলে, 'টাকা নষ্ট করার
কি
দরকার ছিল'?
সেখানেই পূর্ণ ভালোবাসা আমার চোখে
পড়ে।
.
তোমাদের ভালোবাসা ভেজালে পূর্ন,
আমার দেখা ভালোবাসা খাঁদহীন,
একদম খাঁটি।
.
এমন ভালোবাসাও সবাই খুজেঁ পায় না।
অন্য দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে খুজুঁন,
আপনি খাঁটি ভালোবাসার অগনিত
দৃষ্টান্ত দেখতে পাবেন।

Saturday, May 14, 2016

SAHID r PARBINA

Hi friends ami Koustav, Ajj jei story ta likhte cholechi seta Sahid r Parbinar love story r amar site e prothom ei ekta succcesful love story likhte cholechi jeta ekhono beche ache r amar hoyto mone hoy ora sat jonom pasa pasi e thakbe, ekdin oder ektu jhogra hoye chilo but dujone khub sad chilo. Jak ebar jaowa jak story te………
Ami sahid.
Aj theke pray char bochor age kar kotha, ami tokhon class 8th e portam.  Amar dada jekhane porto sekhane amako porte pathay. Sekhane ekta mojar ghotona ghote, ami kichu bujhte parlam na kothay jabo, sekhane giye ami onek gulo bari dekhi. Ami confuse hoye jai, kon khane jabo. Tokhon ami ekta buro lok ke dekhe jiges korlam.
“Kaku ekhane durga babu kothay poran”.
Uni jiges korlen j keno?
Ami bollam ami unar kache porte esechi kintu bujhte parchi je unar bari ba kothay poran.
Uni uttor dilen j “Paser room e giye boso ami e Durga Babu.”
Ami ektu kinchit bodh korlam, Tar pore room e gelam ebong onek jon k dekhte pelam. Besi songkhok meye e chilo kintu tader modhey ekjon chilo sobar theke ektu alada. yellow colour er dress pora meye k dekhlam, ek kone chup kore bose thakte. Ami or samne giye boslam. Sir room ese amar naam jiges korlen ebong sobar sathe porichoy kore dilen r ami tokhon meyetar nam jene jai, meye tar nam Parbina Yesmin. Keno jani na ei nam ta amar mone roye gelo, r karor nam oto ta mone chilo na, Sir pora suru kore dilen, prothom din tai hoyto ektu chup chap chilam, kintu meye tar dike dekhte e ‘amar vitor ta Kemon kore uthlo’ meyetake keno Janina Kemon valo lege giye chilo, jeta mone hoy love at first sight. Meye take dekhte porir moto na holeo, mon ta porir moto pore bujhte pari. Meye take khub pochondo hoye giye chilo. Ei vabe e kichu din chollo. Ami pora sonay ektu valo e chilam, tai nana vabe or sathe friendship hoye gelo. Okhaner baki sobaio amar valo bondhu hoye uthlo. Ei vabe class 8th katlo. Result o jotha riti valo e holo. Ebar amra class 9th e uthlam. Oikhane  e r ekta sir er kache pora suru korlam. Ami English ta alada ekjoner kache portam kintu o jekhane pore amakeo amak sekhane porte bole. Amio sei khane e vorti hoye jai, amara besh moja kore e pora sona kortam, suddenly kichu friends amader friendship k ekta alada nam dilo. Jeta amar ektu pochondo holeo or pochondo hoyni. Ami ei kothay kichu na bolay, o amak daklo ebong amk bollo “tui ete kichu react korisni kno?” Ami Haslam but o keno jani na rege gelo :’( . amak or sathe kotha bolte baron kore. Ami tokhon oke bojhate chesta kori j amra to best friend but ora ja pare boluk na. Tate o aro rege gelo r okhan theke chole gelo. Ami o mon kharap kore chole gelam.  Ami vablam j sob abar thik hoye jabe kintu o r amar sathe kotha bolte chai chilo na. Ami onek bar chesta kore chilam kotha bolar but o kotha bolte chaito na. Tokhon ami vablam “o ektu besi e bara bari korche tai ami r kotha bollam na” kintu sedin theke ami jeno kichute shanti paina. Teution e pora dite parina, sir boka jhoka kore, o amar paseo bose na, ami porte giye sudhu or e dike dekhi, kono note o likhtam na, kichu bojhar o chesta kortam na. Ami kemon palte jete laglam. 9th e result beralo r result khub e kharap hoye chilo. Ghore keu amak bokeni. Amak vorsha diye bollo j porer bar valo hbe. Amar ete kono mon chilo na, sudhu parbina r parbina. Ekhon ami madhyamik candidate, ami khub e free mind er chele, ami khub anande e thakte valobastam kintu keno jani na parbinar dike sob somoy mon pore thakto, hyto khub valobese felechilam. Ami scl bondho kore oi somoy oder barir dike jetam oke dekhar jonno pray 5 K.M cycle chaliye jetam. Dine ekbar jetam na bar bar jetam. Ami oder paray chele gulor sathe fnd korlam oder ghorer samne mathe khelte jetam sudhu oke dekhar jonno. Ekdin amar fnd ra amk buddhi dilo j ami oke naki khub valobashi tai oke bole deowa uchit. Kintu sahos pelam na. amar fnd ra amak ekta ki khayiye chilo first bujhte parini but khabar kichu por bujhte pari ota drinks (MD). Amak sobai bollo eta khele ami shanti pabo. Tar pore amak ekta mobile diye bollo  I LOVE YOU bolte, kintu ami jantam na je ami ki bolechi r kake e ba bolechi. Porer din porte gele or bandhobi ra amak dekhe hase. Ami jiges korle ora bole kichuna. Tar pore ekjon bollo ami naki kauke kichu bolechi, r tokhon amar fnd ra bollo ami PARBINA k propose korechi. Sune anando holeo ekta dukho holo seta drinks kore bolechi, mane sogayan e bolte parini. Tar por theke or proti amar tan arrrro bere gelo. O jekhane jeto ami or pichu pichu cycle kore jetam. Ekdin o amak baron korechilo oke eram na korte, Kintu ami tao kortam. Ekdin o ekta xrox dokan e gelo, vir chilo dokan e ami o gelam dokan e. or pichon e chilam. Durvaggo/ souvaggo bosoto pichon theke ekta dhakkay amar sorir ta or sorir e touch hoye gelo r tokhon o rege giye paa theke choti ta khule amar bam gale ekta chor kosiye dilo. Dokan e sob manush er samne amak mere chilo but amar tate ektu rag holeo mone hoye chilo j o amak touch to koreche amak valo bese mereche. Tarpor o sei muhurte e dokan theke beriye gelo. Ami o or pichu pichu chole gelam. O bari pouchote ami amar fnd ke ph kore daki ebong drinks ante boli. Ami abar oi din abar kheyechilam. R tar por bari chole gelam…….
 Ei vabe e madhyamik ese gelo, exm o diye dilam. Ei vabe amader  2yr kete gelo. Result beralo khub ekta valo hoyni result. Tao o kichu khoj o nilo na. Ami jokhon 11th e vorti holam, r jokhon ami sob asha e chere dilam tokhon ekdin o amak deke bollo “Tui emon korchis kno? Amra to valo fnd tobe tui keno erm korchis? Sobai amak dos dichey. Tui naki amar jonno kharap hoye jachis. Asole ami toke ekta kotha bolte chai, choto bela theke e amar baba ekjoner sthe biye thik kore rekhilo. Kintu ekhon se amak biye korbe na bolchey. Tai ami tor theke dure chilam Jodi ami tor preme pore jai.”  :D ami tokhon khusi holam, ei vebe j thik kore rekhe chilo but ekhon r nei :D ami oke eta boli tahole to r kono problem nei tahol ebar to amar sathe prem kor, o rege gelo r bollo je “Tui Jodi HS e valo result koris tahole vabte pari but tar age porjonto amra valo fnd hoye thakbo”. Kintu ami r poray consontreted korte parina, result abar kharap holo r HS exm ese gelo. O amak santona dey, r bole naki ami valo result korte parbo r ami Haslam. O dayitto nilo amak porar kotha bolar jonno. Amak proti din porte bolto, r vore deke ditto. R bolto Jodi na pori tahole o r amar sathe kotha bolbe na, r ami sei voye pora suru kore dei, sir der o pora ditam r tokhon theke abar sobai amak valo chele bole. Jotha riti HS exm elo. R exm o valo e holo. Tarpor Result er din elo r ami khub valo e result korlam. O khub e khusi hoye chilo amar result er kotha sune, ami oke ekta gift dilam. Amar result er jonno  o amaar deowa gift ta accpect korlo tarpor ami thanks janalam. Er pore amar barite thik kore, amak baire porte pathabe. Amar mon khub kharap hoye gelo ami jete chailam na. tokhon o amay asar jonno request kore, “ Tui Jodi jas tobe ami khub khusi hobo, tui khub boro manush ho, nijer paye dara,” ami or kotha sune chole elam Durgapur e. Or jonnno amar monta khub kharap hochilo, jedin elam sedin sondha belay amar ph e o amak ph korlo r amar deowa proposal accpect korlo 4 yr por. Ami oke 4yr dhore love korchi r 4yr por o amak accpect korlo. Ekta kotha jene rekho real lover kokhono moron hoyna, tumi Jodi take real love koro tahole se ekdin na ekdin thik e tomar life e fire asbe e, fire aste baddho. Tar por ekhon ami LAW COLLEGE DURGAPUR er 1st year er students. R o sanaskrit honours er student. Ekhon amader prem cholche. Majhe majhe choto ba boro problem hoy e but seta kichu khoner dohey e thik hoye jay, amra dujon dujon ke ekta muhurto chere thakte parina. Khub valobasi parbina k, o amar life o amar sob.
Jake valo basbe jiner mon theke valo basbe, kokhono se valobasbe eta vab be na, sudhu eta e vabbe je tumi oke valo baso, prithibir akorson niti thik tomar ei feelings er ans debe e r tomar moner manush ke tomar kache firiye debe. Jeta ke philosophy er vasay bole “ALL IN THE MIND”  tumi jeta chaibe nijer mon theke, r seta Jodi real thake tobe seta nischoy e pabe, r ekta kotha valobashar modhey kokhono ekta bij putbe na seta holo obiswas. R tahole e dekhbe oi valobashar jonno r oi valobashar sathe tumi gota bisowa joy korte parbe, nischoy korte parbei………………………………………………………………….

Friday, May 13, 2016

This Is Our Society

Sorry for English post but i also telling you pls must read it. This is our society.
If Today A Girl Loses Her Virginity With A Guy She Loves Truly But The Guy Turns Out To Be A Cheat Then She Is Tagged As A “Slut”/ “Characterless Girl”.
I Ask What Is The Mistake Of The Girl? She Loved A Guy? She Slept With Someone She Thought She Would Marry?
She Has Now Lost Her Purity Which Would Satisfy Her To-Be Husband’s Male Ego And Make Him Believe That She Is Fit To Be His Wife!
I Wonder How Can A Biological Wall In The Girl’s Body By Breaking Decide The Level Of Her Morals?
Girls Also Belong To The Globalized World, Interacts With The Opposite Sex, Loves, Has Break Ups, Overcomes Them And Smiles Again And No One Has A Right To Tag Them Any Thing For That Reason.....
But If A Girl Looses Her Virginity Doesn't Mean She Wont Be A Good Or A Perfect Wife In Future...
So If U Go Looking For A Girl For Marriage, Search For A True Heart And Not Something Like “Pure Ghee”, Because She's Gonna Be Ur Life Partner And Not Ur Meal To Satisfy Ur Hunger Of Ego.!!

SOB SES

হটাৎ করে যেদিন নিজেকে বদলে নিলে সেদিন
প্রথমে মনে করেছিলাম হয়তো অভিমান
করেছো তাই বার বার তোমার অভিমান
ভাঙানোর জন্য তোমাকে কাকতি মিনতি
করেছি।। কিন্তু আমি জানতাম না তুমি আমার
এই কাকতি মিনতিকে দুর্বলতা ভেবে আরো
বেশি অবহেলা করবে।। জানবোই, বা, কি করে
যে ভালবাসা তোমার কাছে ছিলো, প্রতারণার
সময় কাটানোর, আমার কাছে সেটা ছিলো
পবিত্র মহৎ এবং সত্যিকার ভালবাসা তাই তো
আজ এতো কষ্ট পেলাম তোমার কাছ থেকে।।
তবে তোমার চলে যাওয়াতে আমি কিছুটা গর্বিত
কিছুটা আনন্দিত এবং কিছুটা কষ্ট নিয়ে আছি
সত্যি আমি গর্বিতঃ গর্বিতঃ কারন তোমার
সময় একদিন খারাপ ছিলো সেদিন তুমি
ভালবাসা নামের মিথ্যে গল্প নিয়ে আমার কাছে
হাজির হয়েছিলে আমি সেই খারাপ দিন গুলু দূর
করে দিতে পেরেছি বলে । সত্যি আমি আনন্দিতঃ
আনন্দিতঃ কারন স্রষ্টা যা করেন ভাল করেন
কারন হয়তো এমন কেউ আমার জীবনে আসবে
যার ভেতর নেই কোন পাপ নেই কোন প্রতারণা
কেবল আছে সত্যিকার ভালবাসা যে আমার সব
কিছু জেনে আমাকে আপন করে রাখবে।। মন বলে
স্রষ্টা জানেন তোমার সাথে আমি সুখি হবো
না।। তাই তোমাকে সরিয়ে দিয়েছেন । সত্যি
আমি কিছুটা কষ্টে আছিঃ কষ্টে আছিঃ কারন
প্রথমত তোমাকে সত্যিকার পুর্ণ ভালবাসা
দিয়ে ধরে রাখতে পারিনি যদিও তোমার ভেতর
আমার জন্য ভালবাসা ছিলো না কিন্তু কষ্ট
হচ্ছে এই ভেবে যে আমি তোমাকে এত পবিত্র
মহৎ সুন্দর ভালবাসা দিয়ে যখন পারলাম না,
সত্যিকার ভালবাসা বুঝাতে তাহলে তুমি আর
কোথাও সত্যিকার ভালবাসা পাবে না। কিন্তু
যেদিন তুমি বুঝবে সেদিন ফিরে আসলেও আমি
গ্রহন করতে পারবো না,তুমি কি জানো?
ভালবাসার মানুষ হাত ছেড়ে চলে গিয়ে যদি
আবার ফিরে আসে তখন আগের অনুভূতি গুলু
থাকে না, মনে হয় সে হয়তো আবার করবে
প্রতারণা।। অবশেষে এটাই বলবো যেখানে
থাকো ভাল থেকো তবে মিথ্যে প্রতিশ্রুতি
দিয়ে কারো জীবনে সুখ নষ্ট করে দিও না।
ভেবো না আমার হাত ধরার মতো কেউ নেই
বরং ভেবে নিও তোমার এই মন নিয়ে খেলা
যেদিন ধরা পড়বে সেদিন কি হবে তোমার??

Wednesday, May 11, 2016

Valobasha ki

"শুধু আবেগ দিয়ে ভালোবাসা হয় কিনা আমার
জানা নাই ... বিকালে মানুষটার হাত ধরে
হাঁটলে, বিশেষ দিনে ডেটে গেলে, ফুল দিলে,
মুখে আই লাভ ইউ, মিস ইউ বললে ভালোবাসা
হয় কিনা - আমি আসলেও জানি না ... একজনের
প্রতি আরেকজনের আবেগ কাজ করে, কথা না
হইলে কষ্ট হয়, দেখা না হইলে খারাপ লাগে -
এইটুকুর উপর ভিত্তি করে ভালোবাসা টিকে
থাকে কিনা আমি জানি না !!
আমি শুধু জানি, ভালোবাসার সাথে "সম্মান"
জিনিসটা অনেক বেশি জড়িত ... যে
মানুষটাকে তুমি সম্মান করতে জানো না, তার
সম্মান রক্ষা করতে তুমি জানো না - তাকে
তুমি কিভাবে ভালোবাসো, আমি বুঝি না !!
ফুল, কার্ড, দামী গিফট, ভালোবাসার বুলি -
জিনিসগুলা নিঃসন্দেহে রোমান্টিক ... কিন্তু
মানুষটা আসলে তোমার কাছ থেকে কি চায়,
জানো ?? ... একটু মানসিক শান্তি চায় ...
একটুখানি ভালো থাকতে চায় !!
একটা মানুষের জীবনে হাজার রকমের
ঝামেলা থাকে, ডিপ্রেসন থাকে ... ফ্যামিলি
প্রবলেম থেকে শুরু করে অ্যাকাডেমিক,
আর্থিক, ফ্রেন্ড সার্কেলের সমস্যা - এরকম
হাজারটা সমস্যা ফেইস করে মানুষ ... এত
সমস্যা ফেইস করার পর মানুষটা তোমার কাছ
থেকে এক চিমটি শান্তি এক্সপেক্ট করে শুধু,
আর কিচ্ছু না ... বিশ্বাস করো, আর কিচ্ছু
না !!
একটু সাপোর্ট আর একটু কেয়ার পেলে একটা
মানুষ কতটা খুশি হয় - সেটা তুমি কল্পনাও
করতে পারবা না ... কিন্তু এই ছোট ছোট
জিনিসগুলাই যখন তোমার কাছ থেকে মানুষটা
পায় না, তখন বুঝে নিতে হবে তুমি আসলেও
ভালোবাসতে জানো না !!
ভালোবাসার দোহাই দিয়ে দিনের পর দিন
তুমি যখন একটু একটু করে অশান্তি দিচ্ছো
মানুষটাকে, তখন একটু একটু করে একদিন সে তার
ধৈর্য্যের শেষ সীমায় পৌছায়, তখন না
চাইলেও অনেক দিনের ধরে রাখা হাতটা
তাকে ছেড়ে দিতে হয় ... তখন কাঁদলেও সব
ঠিক হয় না !!
একটা মানুষ কে যদি সম্মানই করতে না জানো,
একটা মানুষ কে যদি সাপোর্টই দিতে না জানো,
একটা মানুষ ছোট ছোট এর
চাওয়াগুলোকে যদি প্রায়োরিটি না শিখো,
তাহলে দয়া করে বইলো না, তুমি তাকে
ভালোবাসো ... হাস্যকর শুনায় কথাটা ...
অনেক
হাস্যকর শুনায় !!
রিকশায় ঘুরা, ফুচকা খাওয়া আর সেলফি তোলার
নাম যদি তোমার কাছে ভালোবাসা
হয়, তাহলে তুমি খুব খুব বাজেভাবে
ভালোবাসা কে অপমান করছো !!
পৃথিবীর শুদ্ধতম এই অনুভূতিটার ভুল ব্যাখ্যা
দিয়ে তুমি যাকে তীব্র রকমের কষ্ট দিচ্ছো,
এই কষ্টগুলো হয়তো মানুষটা একদিন ভুলে যাবে
... দিন শেষে হয়তো সবাই নিজ নিজ জায়গায়
ভালোই থাকবে ... কিন্তু তোমার এই একটা
ভুলের জন্য মানুষটার বুকের ভেতর ভালোবাসা
নিয়ে তিক্ত একটা অনুভূতি জন্মে যায় ... ঐ
তিক্ত অনুভূতিটা জন্মানোর কথা ছিল না ...
অবশ্যই জন্মানোর কথা ছিল না !! একটা মানুষ
কে মানসিক শান্তি, সাপোর্ট,
কেয়ার আর সম্মান দেয়ার বদলে তুমি যদি ফুল,
গিফট, সেলফি, হাগ, কিস এগুলা দেয়াকে
ভালোবাসা মনে করো, তাহলে তুমি
নিশ্চিতভাবেই রাতারাতি "গার্লফ্রেন্ড"
বা "বয়ফ্রেন্ড" খুঁজে পাবা ঠিকই ... কিন্তু
ভালোবাসাটুকু কখনো খুঁজে পাবা না ...কখনোইখুঁজে পাবা না !!

Monday, May 9, 2016

Own Love Story

Ajj abar onek din pore likhchi. Khub e choto kore likhchi. Amar hat kapche, buke khub betha, koto din holo valo kore khaowa hy ni,  ami jani na je o amak valobashe kina but tobuo amar keno jani mone hy je o amake valobashe. Khub valobashe,,,,, nijer praner thekeo besi valobashe. Khub valobashtam & valobashi pagli take, pagli ta amar jibon……. but ekta karoner jonno sob sesh hoye gelo, ami ki korechilam je o ajj amar sathe eram korlo?
Ami manchi je ami vul korechi but emon kono boro vul koreni ji o amak chere debe? Acha tomrai bolo ekta manush ek e vul koto sojjo korbe? Koto ekta manush k bokbe? Amader 2yr er relationship, ami oke biye o korechi, o amar nam e sindoor pore sithi te but eto kichur por o amak chere dilo? Jano amader relationship amader dujoner e bari theke mene niye chilo, but tar por o o chere dilo, ekhon or baba amak takar groom diche, eta ki thik bolo tomra? Or jonno koto e na korechi. Ami ekhon thaki Durgapur e, engineering porchi r kichu din por e clg ses, amader relation 11th theke, or sathe relationship suru hobar 2 months por amader r kono relationship chilona, 2 mass kono kotha hyni or sathe but tar por o amar gechi or kache. Tomader bolle Biswas korbe na but tobuo bolchi, ami jokhon scl e portam ba choto theke e ami kono meyer sathe kotha boltam na mistam o na, kono cheler satheo mistam na sob somoy e eka e thaktam but ekhon ki opobad nite holo jano? Oi meye bole naki j ami naki onno kono meyer sathe relaship rekhechi, tar sathe thakte chai.ei sober por kosto lagena bolo? Tomra jano oi meyer jonno ami amar nijer dada k choto korechi, ami dada k khub valobasi, ami dada bolte oggyan, but oi meyer jonno ami dada k bolechilam “Toder theke ‘RIMA’ amak khub valobashe, tora keu amak valobashis na, o amak kokhono kosto debena, o chara amar keu nei, ami onath” ei sob kotha sune dada khub kosto peyechi. But Rima aj porjonto bujhlo na ami oke koto ta valobastam. Ami oke pagoler moto valovastam. Ei jonno bolchi keu kau k kosto diyo na, sobai happy theko, kokhono keu tar moner manush take kharap cholhe ba sondeher chokhe dekho na. tahole eta din emon asbe j tumi morte giyeo morte parbe na, tomar life ses hoye jabe. Ami or kache emon kichu chaini just ektu care r valobasha pete cheye chilam but o amar choritro tai kharap kore dilo, o amar sob chilo r sara life thakbe

:’( Ami sobar sob story likhtam but ajj onek koster por nijer life e ghote jaowa story ami AIR e anlam, sobaii januk! Bujhik! j ami thik, na meye ta thik! ami oke cherechi naki o amak chereche! Ami ki oke ekta din o valobaste parini? Jodi partam tahole hyto chere jeto na eta sobai bole but eta vul. Ami oke khub valobastam, valobasi r valobasbo. 

Sunday, May 8, 2016

Tomar Kache Lekha Ses Chiti

Keu Karor Jonno Na. Ami o Kau K
love kortam but Se ei valobashar Dam
dilo na
প্রিয় পাগলি...আজ অনেকদিন পর লিখছি তোমায় নিয়ে।হয়তো এটিই তোমার কাছে লেখা আমার শেষ চিঠি। চোখের অশ্রু গুলোর কাছে দিন দিন ঋণী হয়ে যাচ্ছি।তোমার ভালবাসা গুলো মনে হলেই চোখের পাতা গুলো ভিজে উঠে। কষ্টের মাত্রা গুলো থার্মোমিটারের পারদের মত বেড়েউঠে। তাই ভেবেছি আর তোমায় মনে করবনা। না আর মনে করা যাবে না তোমার মিষ্টি তৃপ্তি মাখা মুখখানা।তুমি ভাল আছ তো..? জানো আমি না তোমায় ছাড়া একা খুব ভাল আছি। শুধু ঘুমহীন রাত গুলো খুব মিস করি। এখন আর মোবাইলের ব্যালেন্স শেষ হওয়ার ভয় নেই। অল্প কিছু টাকা দিয়েই এখন আমার মাসখানেক চলে যায়।তোমায় নিয়ে এখন আর এতটা ভাবি না। জানো তবু খুব ভাল আছি। শুধু একবার হাতটা ধরার সে লোভ আমি কত আগেই ছেড়ে দিয়েছি। এখন আর ঘড়িতে অ্যালার্ম দিয়ে ঘুমোতে যাই না, সকাল সকাল তোমায় দেখব বলে। তোমার এলো চুলের গন্ধ এখন আর চোখবন্ধ করলেই আমি মনে করতে পারি না।সত্যিই আমি খুব ভাল আছি। তোমার দেয়া কষ্টগুলো এখন আর আমায় কাঁদায় না।হয়তোবা অনুভূতি গুলো ভোঁতা হয়ে গেছে। আর তোমার প্রতি আমার অভিমান গুলো, তা আমিকত আগেই তুলো বানিয়ে উড়িয়ে দিয়েছি দূর আকাশে।তবে মায়াটা রয়ে গেছে এখনও,উইপোকা কুরে কুরে খাচ্ছে। হয়তো তোমাকে আর হাসতে দেখব না. . . . .. . . .তোমার সাথে আর দেখা হবে কিনা তাওসন্দেহ। আর হলেও তুমি হয়ত না চেনারই চেষ্টা করবে,তাই না.??আর আমাকে এতটা ভালবাসার জন্য ধন্যবাদ। মানুষ ত একটু ভালবাসা পেলেই কতখুশি হয় আর আমি তো অসংখ্য ভালবাসা পেয়ে গেলাম তোমার কাছ থেকে। সত্যিই আমি কৃতড্ঞ তোমার কাছে। জানো আমি না মারা গিয়েছি। ভয় পেয়ো না,মৃত্যুটা আমার অনুভবের, আমার ভালবাসার,মৃত্যুটা তোমাকে কাছে না পাওয়ার। তবে এরজন্য আমি তোমাকে দায়ী করব না।ভালবাসার মানুষদের অপরাধী করতে নেই। তাদের শুধু ভালবাসতে হয় মন ও আত্মার সবটুকু দিয়ে।খুব ইচ্ছে ছিল তোমায় একদিন জড়িয়ে ধরে বলব,-'অনেক ভালবাসি তোমায়, প্লিজ আমায় ছেড়ে কোথাও যেয়ো না 'আজ অনেক কিছু বলে ফেললাম। মনটা আবার খারাপ হয়ে যাচ্ছে। চোখের কোণে কিছু নোনা জলের অস্তিত্ব টের পাচ্ছি। না আর লেখব না তোমায় নিয়ে। জানিই ত তোমায় আর ফিরে পাব না। তুমি আর ভালবাসা আজ আমায় ছেড়ে অনেক দূরে চলে গেছো।তোমার প্রতি আমার অনুরোধ কখনও মনখারাপ করো না কেমন..! আর অন্তত আমার জন্য তোমার চোখের জল ব্যয় করো না। হয়তো তোমার চোখের জল পাওয়ার যোগ্যতা টুকুও আমার নেই।ভালো থেকো আমার কাছের মানুষ, অনেক অনেক ভালো থেকো।ইতি-তোমার 'কেউ না'

Sunday, February 21, 2016

Kothay Ache Manush Valobashle Ekbar Holeo Kadte Hy

Kothay ache manush valobashle ekbar holeo kadte hy kintu ami boli valobashle manush protiniyoto kade. hyto choker jol sob somoy beroy na kintu se toto din kade joto din na se tar moner manush take vulte parche. Se Jodi sotti e valobase, tahole moner modhey se priyo manush tar jonno sara jibon roye jabe. Tobe se jekhane e thakuk na keno, ses hoyeo holo na ses emon e ekhane rehan r Rakhir golpo. Eder jibon duto onno shrotee boye gelo r rekhe golo kichu choker jol ana sriti. Social network e sob somoy besto thakto rehan. Full masti, bondhu der sathe mosti party collage bunk kore ghurte jaowa, ei gulo chilo tar proti diner ghotona, tar jibon ta bodle dilo Rrakhi banarjee, je chilo rehan er puro ulto, santo, dhir, sthir, rakhi originaly north Bengal er, porashonar jonno shout benmgal e ese chilo mashir bari. Rehan er sathe rakhir dekha hy facebook. Rakhi sabr sathe bemon kotha bolto seram rehan er sathe o kotha bolto. Rakhi rehan e avoid korto but rehan take proti niyoto sms korto but ses porjonto rakhi sms korte suru korlo, rehan vebe chilo onno meye der moto e rakhin sathe dekha korbe, r sei postab rakhi k dite rakhi na korlo  but rehan proti niyoto meet korar kotha bolto. But rakhi profile e tar nijer pic deowa chilo na rakhi Kemon dekhte rehan janto na, rehan onek bar rakhir theke pic chaoewa te rakhi pic dei ni,

But kichu din por rakhi nije e bollo meet korbo, jehetu rakhi rehan er puro ulto tai tader dekha e roye gelo, sei rokom valo eke poorer sathe dekha holona, kintu reharan er moner modhey rakhir jonno jei feelings toire hoyeche seta rakhi k bolte parlona. Karon eta tar sathe first time, rehan er onek sundor bandhobi ache but rakhi k dekhle jei feel ings ache seta onno joner sathe hyna. Rehan sob somouy bole but rakhi mana kore dey. Bole amader dunia sompurno alada, obosese rehan mobile no chailo but rakhi raji naholeo pore no diye dey, r bole Biswas kore dilam omorjada koro na.rehan tar sathe kotha bolte suru korlo, tader friendship aro barte thako.kintu tader moner kotha tara keu kauke bolte. Rehan voy peto Jodi se rakhi k haray. Rakhi kintu take bondhu hisabe dekhleo rakhi take like korto eivabe tader 7 mass chole jay, rehan ekhon r tar fnd er stahe ghurte jayna, movie dekhte jay, clg bunk mare na, sob somoy rakhir kotha vabe, actualy se rakhi k niye sob somoy thakte chay, rehan dilhi berate jay sekhane giyeo rakhi k vule jay na, ph korto chat korto. Rehan rakhi k bole sekhane tar ekdom valo lage na. rakhi bole ebar rehank alone k songi korte hobe, rakhi bole se nurshing e chance peyeche ebong uttor bongo chole jache, rehan kichu khon stobdho hoye jay , rakhi bar bar jiges kore ki holo ki chu bolo?????? Rehan uttore sudhu ekta kotha bole tumi ekbar dekha kore jete parte ami sudhu diner por din opekha kore gelam r tumi amar jonnno r ei tuku opekha kore jete parle na rskhi bole aj amar rate train tomar sathe hyto amar r dekha holo na rakhi aro bollo ami bujhte parchi tomar moner modhey amar jonno ekta jayga toiri hoyevche, dyrir pata take khola akashe chire uriye diyo, pata take ekebarer jonno nischinno kore diyo, tokhon rehan rakhi k bollo ami tomak khub valobasi r amar valobasa jodi sotti hy tumi amak ekdin na akdin mak valobasbe, kotha ta ses hote na hote e chokher jol porlo rehan er lappy er kay bord e. kotha gulo sune rakhi tar kanna chepe rakhleo , rakhir train charte na chartei rakhir mon ta unmat hoye gelo, tar mon sudhu vabche se kichu tar jinis ekhane fele jache, or ojantei or chokher jol jhore porlo, sara rat kadte thaklo, odine rehan o bobar moto kadte thalo, nirbak nischup mon mora hoye bose thakto rehan kintu tar babar chokh erayni, rehann rate suye balishe much guje suye thakto r mone mone bolto ami jokhon eka chilam khub valochilam jokhon tui amak dile ei vabe kere nile keno ei vabe deowar kichu karon chilo? Ei vabe kau k debar theke na deowa onek valo, sara din rakhir photo dekhto r tar sathe howa chat gulo dekhto, r gumre gumre kadto, dhure dhire rehan er sotti kharap hote thake , tar chokher kon dhuke jete thake karon ta tar barir lok bujhte pareni. Ekdin rehan er bomi hy, r kromosdo waight loss sondeher karon hote thake, or baba bivinno test korate thake r dhora pore brain cancer, kemo diyeo bachano jabena, last stage. Brain cancer sune rehan venge poreni, o sudhu bole vogobanja kore mongol er jonno, et a to ekdin na ekdin hobar e chilo, rehan nije e sobai k santona dey, rehan rate sute giye vabe ei bujhi mitrur caount down suru hy, rakhir nurshing traing start hoye jay, rehan fb block kore dey, sei jonno rakhi fbte khuje na peleo, majhe majhe kotha hoto ph e, kintu rakhir pora sonar chap baray setao bondho hoye jay, rehan tar maa k sob bole dey. Rakhir kotha, ki vabe tader alap prothon dekha, valo laga, valobasa, or maa take joriye dhore khub kade r bole jeta hoyeche valo e hoyeche, rehan dhire dhire mitrur dike dhole jache, dumas jete rehane r obostha dhire dhire kharap hote thake, rehan er mutual friend riya, riya ekdin rakhi e online dekhte peye rakhi k rehan er sob kotha bole, pore vabe se thik sunch naki vul, r rakhi riya k bar bar jiges korche. R riya ek e kotha bar bar bolte thake, rakhi ph ta rekhe dey r nijer mone kadte thake, r riya k jiges kore rehan ekhon kothay, riya bole se ekhon hospital e admit. Obosese ase sei din soni bar. Soni bar sokal e train dhore chole ase rehan er sathe dekha korar jonno. R sei din e rehan er bara bari suru hy. Rehan or maa k bole maa tumi dekho, rakhi amar kache thik fire asbe. Oke amar khub dekhte eche korche. Oke amar ei bepare kichu bolbe na. maa rakhi fire asle amar pocket e rakaha ei chiti ta debe, tomra jeno keu khule dekhbe na, oke e bolo dekhte.  Rehan er maa bar bar santona diye bole tor kichu hobe na tui thik hoye jabi, rehan bole ami bujhte parchi ma amatr r besi khon na, rehna k ghire barir loker vir, rehan o tader kanna dekhe kede felleo , r joriye dhorlo tar sei priyo jayga ta, tar maa er kol. R bollo maa tumi dekho rakhi kintu asbei amar mon bolche, dupur goriye bikal holo 4:40 pm, rehan bujhlo tar sob kichu ses hoye asche, tar valo laga valobasa, rakhi k niye dekha shopno, sob jeno ondho kar gras kore niche tar chokh gulo ondhokar hoye jache 4:50 pm, sob ses rehan jeno ghumiye porlo. Ghumiye porlo tar maa er kole, chole gelo prokitir buke, sobai kannay venge porlo, or maa baaba keu or ghum vangate parlo na, chiro nidray nidrito hoye gelo rehan. R roye gelo or sunno deho ta. 5:10 pm rakhi ke dekhe or maa joriye dhore kadlo, r rakhio nije k samlate parlona, ekbar vablo o nijeke ses kore felbo, rakhir hate rehan er maa kagoj ta dilo r bollo rehna rekhe geche, “ami bole chilo tomak amar kache firte hobe kintu onek deri kore felle ami r tomay dekhte pelam na tai ei lekha ami eto din opekha korechi opare na hy tomar opekhay roilam, Jodi punor jonmo bole kichu thake tahole amader abar dekha hobe, ami chollam sei duniar khoje aj theke tomar r amar dunia puro alada”. Rakhi r nijeke samlate parlo na. sara din sara rat kadte thaklo, ghotonati ghote chilo 23 e novembar r aj 31 January 2016. Rakhi je medical clg e training niye chilo 24 ghonta kaj er totta bodhan e thake. Karon se aj boddho unmat. Rehan k j koto ta valobese chilo se bujte pareni. Jokhon bujlo tokhon onek deri hoye giyechilo. Tai se rehan er mitru songdab sojjo korte pareni. Tai aj take ghorer char deowal er modhey bondi rakha hoy karon se aj bodho pagol. Karon se rehan er jonno pagol, ekhon tar mukhe sudhu ektai boli, amak amar rehan k fireye dau. Dekho amar rehan ghumache. Pls oke keu ghum theke deke dau. Keu oke ekbar bolo na amar sathe kotha bolte. Ami oke deke deke uthate parlam na, tomra Jodi paro ekbar dekho. Tomra oke tullei ami sob oshudh kheye nebo. Ami abar ager moto hoye jabo. Or mukher theke sada kapor ta soriye dau o dekho nischoy uthbe…… plsssssss ….. amar rehan k amar kache firiye dau. Ami tomader paye pori. Ami tomader kache r kichu chaina…….. plsssssssssssssssssssssss………………………………………………………………….. 

রওনক!! তুমি এখানে বসে কি করছো??

...রওনক পার্কে একা একা বসে আছে। অনেকদিন হলো পার্কে একা একা বসতে চেয়েও বসা হয় না। আগে খুব করে আসতো সে এখানে। প্রেমিকার মুখের মিস্টি হাস...